আ’লীগ সরকার পাকিস্তানি কায়দায় উন্নয়নের কথা বলে ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে

419

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মোহাম্মদ ফয়জুল করীম (শায়েখে চরমোনাই) বলেছেন, পাকিস্তানীরা উন্নয়নের কথা বলে বাঙালীর ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছিল। তারাও উন্নয়ন কম করেনি। মিল, ফ্যাক্টরী, রেলষ্টেশন ইত্যাদি কম করেনি। কিন্তু বাঙালীদের ভোটের অধিকার কেড়ে নেয়ায় শেখ মুজিবুর রহমান আন্দোলন করে পাকিস্তানীদেরকে এদেশ থেকে তাড়িয়েছিলেন। এখন আপনারা পাকিস্তানীদের কায়দায় উন্নয়নের কথা বলে আওয়ামীলীগ আবার বাঙালীদের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে।

তিনি বলেন, ভোটের দাবীতে আন্দোলনকারীদের মিছিলে গুলি চালাচ্ছে আওয়ামীলীগ সরকার। রাজনীতিকরা জেল-জুলুম, গুম-হত্যার শিকার হচ্ছে। কিন্তু আওয়ামীলীগতো এ ধরনের দল ছিল না, ভোটের অধিকার আদায়কারী ও ভোট রক্ষা করার দল ছিল আওয়ামীলীগ। আওয়ামীলীগের অত্যাচার, জুলম, নির্যাতনের বাষ্প দিন দিন ঘনীভূত হচ্ছে। যে কোন সময় বিস্ফোরণ ঘটলে সেই বিস্ফোরণ আর ঠেকানো যাবে না।

বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি’১৮) নরসিংদী জেলখানার মোড়ে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন, নরসিংদী জেলা শাখার দি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

মুফতী ফয়জুল করীম বলেন, ২ কোটি টাকার মামলায় বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর চেয়ে বেশী টাকা আত্মসাৎকারী এবং প্রকাশ্যে ঘুষের পক্ষে বক্তব্য দানকারী দুর্নীতিবাজদেরকে বিরুদ্ধে কোন আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে না।

তিনি শেখ হাসিনাকে ইঙ্গিত করে বলেন, আপনি যখন দেশের প্রধানমন্ত্রী তখন শুধু আওয়ামীলীগের প্রধানমন্ত্রী নন, আপনি সকলের প্রধানমন্ত্রী। দেশ মুসলমানদের, অধিকার সকল ধর্মের মানুষের। কিন্তু আপনার দলের লোকেরা অন্যায় করলে তাদের কোন সাজা হয় না। অথচ বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের উপরে সীমাহীন নির্যাতন চালানো হচ্ছে।

সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন, ছাত্র আন্দোলনের সভাপতি এইচ এম জয়নুল আবেদীন ভূঁইয়া। বক্তৃতা করেন ইসলামী যুব আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার শরিফুল ইসলাম তালুকদার, ইশা ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি শেখ মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, মজলিসে শুরার সদস্য এম এম শোয়াইব, ইসলামী আন্দোলন নরসিংদীর সভাপতি মাও. আব্দুল বারী, সেক্রেটারী মুহাম্মদ আশরাফ উদ্দিন ভূঁঁইয়া, যুগ্ম-সম্পাদক মুফতি কাউছার আহমেদ, ছাত্র ও যুব বিষয়ক সম্পাদক মাও. আরিফ বিন মেহের উদ্দিন, সহ-সাংগাঠনিক সম্পাদক মো: রাকিবুল হাসান, সদস্য সচিব মাও. আরিফুল ইসলাম মোল্লা, ইসলামী শ্রমিক আন্দেলনের সভাপতি মো: আব্দুল ওয়াহেদ, ইসলামী যুব আন্দোলনের সভাপতি মাও. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া প্রমুখ।