বুধবার শুরু গওহরডাঙ্গা মাদ্রাসার বার্ষিক ওয়াজ

302
ওয়াজ মাহফিল

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় অবস্থিত দেশের অন্যতম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জামিয়া ইসলামিয়া খাদেমুল ইসলাম গওহরডাঙ্গা মাদ্রাসার ৮২তম বার্ষিক ওয়াজ মাহফিল বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি) ফজরের নামাজের পর আম বয়ানের মধ্য দিয়ে  শুরু হবে।

আম বয়ান করবেন গওহরডাঙ্গা মাদ্রাসার মহাপরিচালক, পীরে কামেল আল্লামা মুফতি রুহুল আমীন। মাহফিলের শেষে বিশেষ হেদায়েতি বয়ান, দোয়া পরিচালনাসহ আরও কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বয়ান রাখবেন তিনি। 

তিন দিনব্যাপী মাহফিলে জিকির-আজকার ও মুসল্লিদের ইবাদত-বন্দেগিতে এলাকা মুখরিত থাকবে। মাহফিলে আগত ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের উদ্দেশে দেশ-বিদেশের বিখ্যাত ওলামায়ে কেরাম ওয়াজ-নসিহত পেশ করবেন। মাহফিলে আগত মুসল্লিদের নামাজসহ ইসলামের অন্যান্য বিধান বিশুদ্ধ পদ্ধতিতে শেখানোর কার্যক্রম হাতে নিয়েছে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ। 

ইতোমধ্যে মাহফিলের যাবতীয় প্রস্ততি সম্পন্ন হয়েছে। মাহফিলে ঢাকা, বাগেরহাট, পিরোজপুর, নড়াইল, বরিশাল, ফরিদপুর, মাদারীপুর, শরীয়তপুর, রাজবাড়ী, খুলনা ও যশোরসহ দেশের দূর-দুরান্তের বিভিন্ন জেলা থেকে মুসল্লিরা  অংশ নেবেন। 

গওহরডাঙ্গা মাদ্রাসার মাহফিলের কারণে টুঙ্গিপাড়া আজ অন্যতম ধর্মীয় তীর্থভূমিতে পরিণত হয়েছে। রাজনীতিবিদ থেকে শুরু করে সর্বস্তরের মানুষ এই মাহফিলে অংশ নিয়ে থাকেন। 

১৯৩৭ সালে সদর সাহেব খ্যাত বিখ্যাত আলেম, মুজাহেদে আজম আল্লামা শামছুল হক ফরিদপুরী (রহ.) মাদ্রাসাটির গোড়াপত্তন করেন। মাদ্রাসাটি দক্ষিণাঞ্চলে দ্বীনি শিক্ষা বিস্তারে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখে আসছে। 

গওহরডাঙ্গা মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠাকাল থেকে সমাজের বহুমুখি খেদমত আঞ্জাম দিয়ে আসছে। বর্তমানে এর মহাপরিচালক সদর সাহেবের (রহ.) সাহেবজাদা পীরে কামেল আল্লামা মুফতি রুহুল আমিন। তার পরিচালনায় নানা প্রতিকূলতা উপেক্ষা করে প্রতিষ্ঠানটি আজ সফলতার স্বর্ণশিখরে অবস্থান করছে। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটি পুরুষ ও মহিলা দু’টি শাখায় বিভক্ত। 

২০০৮ সালে সদর সাহেব (রহ.)-এর বাড়িতে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয় মাদ্রাসার মহিলা শাখার। সম্পূর্ণ শরিয়তি পর্দার সঙ্গে এ প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষা কার্যক্রম চলছে। স্থানীয় ও দূরের মুসলিম মা-বোনরা দ্বীনি ইলম শিখতে এখানে ছুটে আসেন।

মাদ্রাসার নিয়মতান্ত্রিক কর্মসূচির হিসেবে প্রতিবছর শীতকালে তিন দিনব্যাপী বার্ষিক ওয়াজ মাহফিলে আয়োজন করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় এ বছর ৭ ফেব্রুয়ারি বুধবার সকাল থেকে শুরু হচ্ছে ৮২তম বার্ষিক ওয়াজ মাহফিল। যা শনিবার বাদ ফজর বিশেষ মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হবে।

প্রতিবছরের মতো এবারও দাওরায়ে হাদিস, ইফতা, তাফসির, হিফজ ও কেরাত বিভাগ সমাপ্তকারী

উত্তীর্ণ ছাত্রদের সম্মানসূচক পাগড়ি ও সনদ প্রদান করা হবে। মাহফিল উপলক্ষে ছাত্ররা আরবি ও বাংলা ভাষায় ২০টির মতো দেয়ালিকা প্রকাশ করেছে।

এ ছাড়া মাদ্রাসার মূখপত্র মাসিক আল আশরাফ ‘সামাজিক অবক্ষয়’ শিরোনামে বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করেছে।

মাহফিলের প্রথম দিন আলেম-উলামা ও দ্বিতীয় দিন প্রাক্তন ছাত্রদের নিয়ে বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে।