রাশিয়ার আর্কানজেলস্ক প্রদেশে প্রথম মসজিদ উদ্বোধন

367
মসজিদ

আর্কানজেলস্ক রাশিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত একটি প্রদেশের নাম। এই প্রদেশের কেন্দ্রীয় শহরের নামও আর্কানজেলস্ক। শহরটি প্রতিষ্ঠা হয় ১৫৮৪ সালে।

আর্কানজেলস্ক প্রদেশের আয়তন ৪২ হাজার ২৯৪ বর্গকিলোমিটার এবং এর জনসংখ্যা পাঁচ লাখের কিছু বেশি। এই অঞ্চলটি শীতপ্রধান। শীতের বেশিরভাগ সময় এই শহর বরফে ঢাকা থাকে। সারা বছরের গড় তাপমাত্রা মাত্র ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বছরের উষ্ণতম মাস জুন, জুলাই ও আগস্ট। আর শীতলতম মাস হলো- ডিসেম্বর, জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি। 

সেই আর্কানজেলস্কে প্রথম মসজিদ উদ্বোধন করা হয়েছে, মসজিদটি রাশিয়ার পুরনো স্থাপত্যরীতি অনুযায়ী নির্মিত। 

তীব্র শীত উপেক্ষা করে শনিবার (০৩ ফেব্রুয়ারি) আর্কানজেলস্ক জামে মসজিদের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রাশিয়ার মুফতি পরিষদের প্রধান মুফতি শেখ রাভিল যাইনুদ্দিন, তাতারিস্তান প্রদেশের প্রেসিডেন্ট রুস্তম মিনিখানভ এবং আর্কানজেলস্ক প্রদেশের গভর্নর ইগোর উরলভ। 

মসজিদের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করে রাশিয়ার রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত টেলিভিশন চ্যানেল রুসিয়া-১। চ্যানেলটি মসজিদের উদ্বোধনকে রাশিয়ার মুসলিম সমাজের জন্য একটি ‘বিশাল ঘটনা’ বলে উল্লেখ করে। প্রশংসা করে মুসলমানদের।

স্থানীয় ইসলামি সংস্থা ‘নূর ইসলাম’ ২০১২ সালে এই মসজিদের নির্মাণকাজ শুরু করে। আর্কানজেলস্ক জামে মসজিদটিকে উত্তর রাশিয়ার স্থাপত্যরীতির সঙ্গে মিল রেখে নির্মাণ করা হয়েছে। শহরের ঠিক কেন্দ্রস্থলে মসজিদটি নির্মিত হয়েছে বলে রুসিয়া-১ জানিয়েছে। 
মসজিদের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথিদের একাংশ

এর আগে জানুয়ারি রাশিয়ায় মসজিদের সংখ্যা বৃদ্ধিতে সন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। রাশিয়ার গ্রান্ড মুফতি তালাত তাজউদ্দিনের সঙ্গে সাক্ষাতকালে তিনি এ সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। পুতিন বলেন, রাশিয়ায় মসজিদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় বোঝা যায় এদেশে ইসলামে প্রসার ঘটছে।

১৯৯৭ সালে রুশ সংবিধানে খ্রিস্টধর্ম, বৌদ্ধধর্ম এবং ইহুদিধর্মের পাশাপাশি ইসলাম ধর্মকেও রাশিয়ার ‘সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যে’র অংশ হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে রাশিয়ার মোট জনসংখ্যার প্রায় ১৫% ইসলাম ধর্মাবলম্বী। অর্থাৎ রাশিয়ার মোট ১৪ কোটি ৬০ লাখ জনসংখ্যার মধ্যে মুসলমানের সংখ্যা ২ কোটিরও বেশী।